বাইডেনের ভ্যাকসিন নীতি স্থগিত করল যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্ট

যুক্তরাষ্ট্র

কভিড-১৯ টিকা বাধ্যতামূলক করার পদক্ষেপ নিয়ে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসনের বিরুদ্ধে কর্তৃত্বের সীমা অতিক্রম করার অভিযোগ করেছেন দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। বাইডেন যে নীতি নির্ধারণ করেছিলেন সেটি মার্কিনিদের জীবন ও স্বাস্থ্যের জন্য অনুপযুক্ত বলে মত দিয়েছেন বিচারকরা। ফলে ওই ভ্যাকসিন নীতি স্থগিত করে দিয়েছেন দেশটির সর্বোচ্চ আদালত।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স ও ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ ব্যাপারে প্রতিবেদনে প্রকাশ করেছে। খবরে বলা হয়, কদিন আগে যুক্তরাষ্ট্রের বড় ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলোর সব কর্মীদের জন্য প্রতি সপ্তাহে কভিড-১৯ শনাক্তকরণ পরীক্ষায় অংশ নেয়ার নীতি ঘোষণা করেছিলেন জো বাইডেন। পাশাপাশি সকলকে টিকা ও সার্বক্ষণিক মাস্ক পরতে বলা হয়েছিল। প্রেসিডেন্টের এ নীতিকে আটকে দিয়েছে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট।

বাইডেনের নীতি স্থগিত করে দেয়ায় খুশি হয়েছেন সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আদালতের সিদ্ধান্তে আনন্দ প্রকাশ করে বলেন, ওই নীতির আদেশ দেশের অর্থনীতিকে ধ্বংস করে দিতো। বিষয়টি নিয়ে পিছপা না হওয়ার জন্য আমরা সুপ্রিম কোর্টের জন্য গর্বিত।

আদালতের ৯ বিচারকের মধ্যে ছয়জনই বাইডেনের ভ্যাকসিন নীতির বিপক্ষে মত দেন। বাকি তিনজন বিচারক ভিন্নমত পোষণ করেছেন। সংখ্যাগরিষ্ঠ বিচারকরা বলেছেন, বাইডেনের এ নীতি বড় ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান পরিচালনাকে অবরুদ্ধ করে দেবে। যেখানে ৮ কোটিরও বেশি কর্মচারী কাজ করে। এটিকে প্রতিদিনের অপরাধ ও দূষণের ঝুঁকির সঙ্গে তুলনা করেছেন সংখ্যাগরিষ্ঠ বিচারকরা।

ভিন্নমত দেয়া বিচারকদের মধ্যে স্টিফেন ব্রেয়ার বলেন, এ সিদ্ধান্ত কেন্দ্রীয় সরকারের ক্ষমতাকে বাধা দেয়ার সামিল। যেখানে দেশের কর্মীদের জন্য কভিড-১৯ অতুলনীয় হুমকি তৈরি করেছে।

বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কমপক্ষে ১০০ জন কর্মীকে প্রতি সপ্তাহে কভিড পরীক্ষার নীতি নির্ধারণ করা প্রেসিডেন্ট বাইডেন আদালতের এমন সিদ্ধান্তে হতাশা প্রকাশ করেছেন। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, আদালতের সিদ্ধান্ত স্বাস্থ্যসেবা কর্মীদের সমর্থন দিলেও তার প্রশাসন এটি কার্যকর করবে। এছাড়া শ্রমিকদের ফেব্রুয়ারির শেষের দিকে টিকা দিতে হবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *