১০ বছরে দারিদ্র্যসীমার নিচে যাবে ১০০ কোটি মানুষ

আন্তর্জাতিক জাতিসংঘ

করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে আগামী ১০ বছরে বিশ্বে ২০ কোটি ৭০ লাখ মানুষ দারিদ্র্যের চরম সীমায় চলে যাবে। আর মোট দারিদ্র্যসীমার নিচে চলে যাবে ১০০ কোটি মানুষ।

এক গবেষণা প্রতিবেদনে এমন তথ্য দিয়ে সতর্ক করেছে জাতিসংঘের উন্নয়নবিষয়ক সংস্থা ইউএনডিপি।

বিশ্বজুড়ে যখন সবাই করোনার ভ্যাকসিন চলে আসা নিয়ে উচ্ছ্বসিত, তখন ইউএনডিপি বলছে, আগামী এক দশকে ব্যাপকহারে দেখা যাবে করোনার প্রভাব।

এতে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হবেন আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া মানুষ। খবর এনডিটিভির।

আগামী এক দশকে মহামারীর প্রভাব কী হবে, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার ওপর করোনার প্রভাবসহ ভাইরাসটি বহুমুখি ক্ষয়ক্ষতি কেমন হবে, এসব নিয়ে ইউএনডিপির অনুসন্ধানী এক প্রতিবেদনে দারিদ্র্য সংক্রান্ত এসব তথ্য উঠে আসে।

বিশ্বজুড়ে ব্যাপক প্রভাব ফেলেছে মহামারী। আর্থিক অগ্রগতি থমকে গেছে এই ভাইরাসের প্রকোপে। কাজ হারিয়েছেন বহু মানুষ। নতুন কর্মসংস্থান হচ্ছে না। ফলে দেশগুলোর আর্থিক বৃদ্ধি ও সাধারণ মানুষের জীবনযাপনের মানোন্নয়ন থমকে রয়েছে।

এর আগে আইএমএফ এবং বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির পক্ষ থেকেও ২০২১ সালে বড় বিপদ আসছে বলে আশঙ্কা করা হয়েছিল। উপযুক্ত ব্যবস্থা না নিলে দুর্ভিক্ষ হতে পারে বলে পূর্বাভাস দেয়া হয়েছিল।

এবার ইউএনডিপির নতুন প্রতিবেদনেও তেমন আশঙ্কার কথাই উঠে এসেছে।

প্রতিবেদনটিতে আরও বলা হয়- মহামারীর প্রভাব হয় সুদূরপ্রসারী। বিশ্বজুড়ে শোচনীয় পরিস্থিতি তৈরি করবে এই মহামারী। পুরুষের তুলনায় নারীর পরিস্থিতি বেশি খারাপ হবে।

আগামী দশকে ১০ কোটি ২০ লাখ নারী দারিদ্র্যসীমার নিচে চলে যাবেন। এর ফলে বিশ্বজুড়ে পাচারসহ নারীদের বিরুদ্ধে অপরাধ আরও বেড়ে যাবে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনাভাইরাস আসার পর যেভাবে দ্রুত টিকা তৈরিতে এগিয়ে এসেছে বিশ্ব, তাতে যে কোনো রোগকে হয়তো হারিয়ে দেয়ার সক্ষমতা অর্জন করবে বিশ্ব।

কিন্তু রোগের ক্ষত, বিশেষত করোনার ক্ষত থেকে যাবে বহু বছর।❐

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *