মিয়ানমারে নতুন আইন: সেনা বিরোধী আন্দোলনে ২০ বছরের জেল

আন্তর্জাতিক

মিয়ানমারে আন্দোলন দমনে নতুন নতুন পথ খুঁজছে সেনাবাহিনী। ইন্টারনেট বন্ধ করে আর কারফিউ জারি করেও কোন ফল না পাওয়ায় এবার বিক্ষোভকারীদের থামাতে কারাদণ্ডের ভয় দেখাচ্ছে সেনা সরকার।

সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়, সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করলে ২০ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ডের সাজার বিধান রেখে নতুন আইন জারি করছে মিয়ানমার সরকার। একইসঙ্গে সেনাবাহিনীর সদস্যদের ওপর হামলা করলে বা সরকারের বিরুদ্ধে ঘৃণা ছড়ানোর চেষ্টা করলে সাজার মেয়াদ বাড়তে পারে, পাশাপাশি আর্থিক জরিমানাও করা হবে।

দেশজুড়ে সেনাবাহিনীর টহল শুরুর পরই এমন আইন জারি করলো দেশটির সরকার। এদিকে সোমবার আটক রাষ্ট্রনেতা অং সাং সু চির আইনজীবী জানিয়েছেন তাঁর মুক্তি পেতে আরো দুই দিন সময় লাগতে পারে। নেপিদোর আদালতে তাকে বিচারের সম্মুখীন করা হতে পারে বলেও জানিয়েছেন আইনজীবী খিন মুয়াং জো।

সেনা অভ্যুত্থানের পর স্টেট কাউন্সেলর সু চি আর রাষ্ট্রপতিসহ দেশটির গণতান্ত্রিক দল এনএলডির কয়েকশো নেতাকর্মিকে আটক করে ক্ষমতা দখল করে সেনাবাহিনী। ১৫ ফ্রেব্রুয়ারি তাদের মুক্তি দেয়ার কথা থাকলেও তাদের বিরুদ্ধে বেশ কিছু মামলার প্রস্তুতি নিয়েছে সেনা সরকার।

এমন দেশটিতে অবস্থায় প্রতিদিনই জোরদার হচ্ছে সেনাশাসন বিরোধী আন্দোলন। ইয়াঙ্গুনসহ বড় শহরগুলোতে পুলিশের বাধা অতিক্রম করে রাতেও মিছিল করছে বিক্ষোভকারীরা।❐

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *