নাকাইহাট শিশুদের মাঝে শাহ্‌ ফাউন্ডেশনের ধারাবাহিক শীতবস্ত্র কর্মসূচীর সমাপ্তি

আঞ্চলিক প্রবাস বাংলাদেশ

যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইর্য়কভিত্তিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন শাহ্‌ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগ ও আয়োজনে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার নাকাইহাট গ্রামে প্রায় অর্ধ শতাধিক মাঝে শিশুদের শীতবস্ত্র প্রদান করেছে।

স্থানীয় যুব ইউনিয়ন গোবিন্দগঞ্জ শাখার সহযোগিতায় গেল ১৯ ফেব্রুয়ারি এ আয়োজন সম্পন্ন করা হয়।

শাহ্ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রেসিডেন্ট শাহ্‌ জে. চৌধুরী জানান, নাকাইহাটের এ আয়োজনের মাধ্যমে তাদের ধারাবাহিক শীতবস্ত্র বিতরণ কার্যক্রম শেষ হলো।

গেল ২০ দিনে জেলার ৬টি স্থানে মহিলা পরিষদ, সিপিবি, ছাত্র ইউনিয়ন, ক্ষেত মজুর সমিতি ও যুব ইউনিয়নের সহযোগিতায় শিশু ও প্রতিবন্ধি শিক্ষার্থীদের মাঝে চলমান এ কর্মসূচির সফল সমাপ্তি ঘটল।

এবারে নাকাইহাট গ্রামে শিশুদেরকে শাহ ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে শীতবস্ত্র প্রদান করেন বাচিক শিল্পী দেবাশীষ দাশ দেবু, রাজনীতিবিদ নীরুপম কুমার সরকার, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ গাইবান্ধা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ও সাংবাদিক রিক্ত প্রসাদ, যুব ইউনিয়ন গাইবান্ধা জেলা কমিটির সভাপতি অধ্যাপক প্রতীভা সরকার ববি।

সার্বিক ব্যবস্থাপনা ও সমন্বয়ের দায়িত্ব পালন করেন পরিবেশ আন্দোলন জেলা শাখার সভাপতি ও ক্রীড়া সংগঠক ওয়াজিউর রহমান র‌্যাফেল। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন গোবিন্দগঞ্জ উজেলার নেতৃবৃন্দ।

গাইবান্ধা জেলার বিভিন্ন স্থানে অসহায় ও গরীর শিশুদেরকে শীতবস্ত্র প্রদানের জন্য আয়োজকরা শাহ ফাউন্ডেশনকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

আগামীতেও শাহ ফাউন্ডেশন এ ধরনের কর্মসূচি অব্যাহত রাখবে বলে বক্তারা আশা প্রকাশ করেন।

শাহ্‌ জে চৌধুরী জানান, তারা গেল জানুয়ারি মাসের ২৮ তারিখে ধারাবাহিক শীতবস্ত্র বিতরণের শুরুর দিনে গাইবান্ধা শিশু সদন মহিলা বিভাগে একশ’ অনাথ মেয়ে শিশুকে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন। এদিন তাদেরকে সহযোগীতায় এগিয়ে আসায় বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ গাইবান্ধা জেলা শাখাকে ধন্যবাদ জানান।

এরপর গেল ১ ফেব্রুয়ারি ধারাবাহিক শীতবস্ত্র বিতরণের দ্বিতীয় দিনে গাইবান্ধায় বুদ্ধিপ্রতিবন্ধীদের, ৭ ফেব্রুয়ারি তৃতীয় দিনে গাইবান্ধা জেলার অনাথ শিশুদের সাঁওতাল আদিবাসী ১৬০ অনাথ শিশুকে এবং চতুর্থ দিনে গাইবান্ধা জেলার ফুলছড়ি উপজেলার কালির বাজারে দলিত শ্রেণি রবিদাস সম্প্রদায়ের শিশু শিক্ষার্থীদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়।❐

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *