এবারে গাইবান্ধায় শাহ্‌ ফাউন্ডেশনের সাঁওতাল শিশুদের শীতবস্ত্র বিতরণ

আঞ্চলিক প্রবাস বাংলাদেশ

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইর্য়ক ভিত্তিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন শাহ্‌ ফাউন্ডেশন এবারে বাংলাদেশের গাইবান্ধা জেলার অনাথ শিশুদের সাঁওতাল আদিবাসী ১৬০ জন অনাথ শিশুকে শীতবস্ত্র প্রদান করেছে।

শাহ্‌ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা শাহ্‌ জে. চৌধুরী জানান, আর্ত-মানবতার সেবার লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত শাহ্‌ ফাউন্ডেশন মানুষের সেবার ব্রত নিয়েই এগিয়ে চলেছে। তারই অংশ হিসেবে প্রতিষ্ঠানটি গাইবান্ধা জেলায় ধারাবাহিকভাবে শীতবস্ত্র বিতরণ কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিল।

গেল ৭ ফেব্রুয়ারি গাইবান্ধা জেলায় শাহ্‌ ফাউন্ডেশনের শীতবস্ত্র বিতরণের ধারাবাহিক কার্যক্রমের তৃতীয় দিনের আয়োজনটি সম্পন্ন হলো। জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি কমিটি এ আয়োজনের উদ্যোগে এগিয়ে আসে।

এর আগে ২৮ জানুয়ারি গাইবান্ধার স্থানীয় সরকারি শিশু পরিবার (বালিকা) চত্বরে আয়োজিত প্রথম কার্যক্রমে শাহ্‌ ফাউন্ডেশন একশ’ অনাথ মেয়ে শিশুকে শীতবস্ত্র বিতরণ করে। পরবর্তীতে ১ ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয় আয়োজন গাইবান্ধায় বুদ্ধি প্রতিবন্ধীদের শীতবস্ত্র বিতরণ করে।

শীতবস্ত্র বিতরণ কার্যক্রমে অতিথি মিহির ঘোষ জানান, ২০১৬ সালের নভেম্বরে সাঁওতালদের একটি পল্লীতে হামলায় পুলিশের গুলিতে রমেশ-শ্যামল-মঙল নিহত হন। তাদের স্মরণে প্রতিষ্ঠিত ‘রমেশ-শ্যামল-মঙল বেসরকারি আদিবাসী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শীতবস্ত্র বিতরণ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তিনি বলেন, শাহ্‌ ফাউন্ডেশন অনাথ শিশুদের শীত বস্ত্র বিতরণের মাধ্যমে নৈতিক দায়িত্ব পালন করে মানবিকতার কাজ করেছে।

শীতবস্ত্র বিতরণ কার্যক্রমে অতিথি ছিলেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটি সভাপতি মন্ডলীর সদস্য ও গাইবান্ধা জেলা কমিটির সভাপতি মিহির ঘোষ, সাহেবগঞ্জ বাগদা ফার্ম ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটির সভাপতি ও আদীবাসী নেতা ফিলিমন বাস্কে, সিপিবি গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা কমিটির সভাপতি তাজুল ইসলাম এবং সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও বাচিক শিল্পী দেবাশীষ দাস দেবু।

ব্যবস্থাপনা ও সমন্বয়ের দায়িত্বে ছিলেন পরিবেশ আন্দোলন জেলা শাখার সভাপতি ও রাজনীতিবিদ ওয়াজিউর রহমান র‌্যাফেল।

এ ছাড়াও সাহেবগঞ্জ বাগদা ফার্ম ভূমি এলাকায় প্রতিষ্ঠিত রমেশ-শ্যামল-মঙল বেসরকারি আদিবাসী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শাহ্‌ ফাউন্ডেশনের দেয়া শীত বস্ত্র বিতরণকালে সিপিবি ,আদিবাসী ও যুব ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আদীবাসী নেতা ও সাহেবগঞ্জ বাগদা ফার্ম ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটির সভাপতি ফিলিমন বাস্কে এ মহৎ কাজে এগিয়ে আসার জন্য সাহেবগঞ্জ বাগদা ফার্ম ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটি ও আদীবাসীর পক্ষ থেকে শাহ্‌ ফাউন্ডেশনকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, পিছিয়ে যাওয়া জনগোষ্ঠী ও সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষ যাদের অনেকের হয়ত ঘর আছে কিন্ত শিশুদের গরম কাপড় কিনে দেওয়ার সামর্থ্য নেই । সেসব শিশুদের পাশে দাঁড়িয়ে শাহ্‌ ফাউন্ডেশন নৈতিকতার পরিচয় দিয়েছে।

দেবাশীষ দাস দেবু বলেন, শহরের মানুষ হয়ত শীতের তীব্রতা বুঝতে পারছে না। তবে গ্রামে তীব্র শীতে মানুষ ও তাদের ছোট ছোট সন্তানদের শীত নিবারণের সামান্য বস্ত্রটুকুও হয়ত অনেকের নেই। তাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য শাহ্‌ ফাউন্ডেশনকে অভিনন্দন।

প্রতীভা ববি বলেন, আসুন শাহ্‌ ফাউন্ডেশনের মতো সবাই মিলে শীতার্ত মানুষের গায়ে জড়িয়ে দিই গরম কাপড়। সবাই এগিয়ে আসুন, আপনার সামান্য ত্যাগের বিনিময়ে শীতের কষ্ট থেকে মুক্তি পাবে শত শত অসহায় শিশু ও দরিদ্র পরিবার।

শাহ্‌ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা শাহ্‌ জে. চৌধুরী রূপসী বাংলাকে জানান, এবারের শীতেই তাদের প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে চতুর্থ কার্যক্রমে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার নাকাই হাটে শিশুদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণের মাধ্যমে সমাপ্ত হবে।❐

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *